যে কারণে সফল হয়নি জাদেজা-মাধুরীর প্রেম

ভারতীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে বলিউডের নায়িকাদের সম্পর্ক বহু পুরোনো। একের পর এক ক্রিকেটার বাঁধা পড়েছেন অভিনেত্রীদের বাহুডোরে। বিরাট কোহলি-অনুষ্কা শর্মা সেই তালিকায় নাম লিখিয়েছেন। মনসুর আলি পতৌদি-শর্মিলা ঠাকুর, আজহার-সঙ্গীতা বিজলানি, জাহির খান-সাগরিকা ঘাটগে, শোয়েব মালিক-সানিয়া মির্জা তালিকায় একের পর এক বড় নাম।

তবে অপ্রাপ্তির সংখ্যাও কম নয়। অজয় জাদেজা-মাধুরী দীক্ষিত যেমন! ৯০-এর দশকে সবথেকে হাই প্রোফাইল সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন দুই সুপারস্টার। স্রেফ একটা ভুলেই সেই সম্পর্ক পরিণতি পায়নি।নব্বইয়ের দশকে জাদেজা ছিলেন ভারতীয় দলের সহ অধিনায়ক। স্মার্টনেস এবং জাদেজার ব্যক্তিত্বের ‘ফিদা’ দেশের আপামর তরুণীরা। অন্যদিকে আবার মাধুরী ড্রিম গার্ল। একটি ম্যাগাজিনের ফটোস্যুটে দুজনে সামনা সামনি পরিচিত হন প্রথমে।

সেই ম্যাগাজিনের ফটোস্যুটের পরেই দুজনের সম্পর্কের রসায়ন নিয়ে গোটা দেশে আলোচনা শুরু হয়। তারপরেই একাধিকবার প্রচারমাধ্যমে লেখা হয়, জাদেজা-মাধুরী একে অন্যের সঙ্গে ডেটিং করছেন। যদিও সেই সময়েই দেশের এক নম্বর হিরোইন মাধুরীর নামের সঙ্গে সম্পর্কের জল্পনা ছিল সঞ্জয় দত্ত, অনিল কাপুরের মত বলিউড নায়করাও।

এরপর জাদেজা-মাধুরী নিয়ে তীব্র আলোচনার মধ্যেই খবর প্রকাশ পায় যে জাদেজা সিনেমায় নামার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন। মাধুরীকে নাকি তিনি এমন একান্ত এই ইচ্ছার কথা জানান। এরপরেই গার্লফ্রেন্ড মাধুরী জাদেজার নাম একাধিক বড় প্রোডিউসারের কাছে সুপারিশ করেন।এই সময়েই বড় ধাক্কা খান জাদেজা। এতদিন ব্যাট হাতে চুটিয়ে রান করা জাদেজা হঠাৎ ফর্ম হারিয়ে ফেলেন। পর পর ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হতে থাকেন তিনি। সেই সময়ই ছিল জাদেজার ক্রিকেট কেরিয়ারের সবথেকে খারাপ সময়।

সেই সময় আবার জাদেজার পরিবারের তরফ থেকেও মাধুরীকে নিয়ে তীব্র আপত্তি জানানো হয়। জাদেজা ছিলেন রাজস্থানের এক রাজার বংশধর। রাজকীয়তা উপচে পড়ত জাদেজার চলাফেরায়। এমন এলিট পরিবারের তরফ থেকে ক্রিকেটারকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, মধ্যবিত্ত ব্রাহ্মণ পরিবারে মাধুরীকে বধু হিসেবে আনা যাবে না।এমন ঝড়ের বিরুদ্ধে লড়তে পারেননি জাদেজা। পরিবারের কথা মেনে নিয়েই সম্পর্কে ইতি টানেন তিনি। তার আগেই জাদেজার নাম জড়িয়ে গিয়েছে ম্যাচ গড়াপেটায়। মহম্মদ আজহার উদ্দিনের সঙ্গে জাদেজার নাম গড়াপেটায় জড়িয়ে যাওয়ায় চমকে যায় গোটা দেশ। এতদিন জাদেজাকে নিয়ে মাধুরীর পরিবারে কোনো আপত্তি ছিল না।

তবে গড়াপেটায় জড়িয়ে পড়ার পর মাধুরীর পরিবার থেকেও আপত্তি শুরু হয়। শেষমেশ ১৯৯৯ সালে ব্রেক আপ হয়ে যায় জাদেজা-মাধুরীর বহু আলোচিত সম্পর্কে। তারপরেই মাধুরীর সঙ্গে আলাপ হয় মার্কিন প্রবাসী চিকিৎসক শ্রীরাম নেনে-র সঙ্গে। প্রথম দেখাতেই প্রেম এবং পরে পরিণয়।সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।