৮০টি গরুর রহস্যজনক মৃ’ত্যু!

ভারতের একটি গো-শালায় আ’চমকা ৮০টি গরু মা’রা যাওয়ায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। রাজস্থানের চুরু জেলায় এই ঘট’নার খবর পা’ওয়ার পরে দেশটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ঘ’টনাস্থলে পৌঁছে ত’দন্ত শুরু করেছেন। চাঞ্চল্যকর ওই ঘ’টনাটি ঘটেছে জেলার সরদারশহরের বিলুবাস রামপুরার শ্রী রাম গো-শালায়।

এ প্রসঙ্গে সরদার শহরের প্রশাসনিক প্রধান কুতেন্দ্র কানওয়ার জানান, ‘ঘ’টনার ত’দন্ত শুরু করা হয়েছে। সর্বোপরি, বি’ষা’ক্ত খা’বার খেয়ে বা রো’গের কারণে এতগুলো গরু মা’রা গেছে কি না, তা নিশ্চিত করা হচ্ছে। ত’দ’ন্ত প্রতিবেদন আসার পরে মৃ’ত্যু’র কারণ স্পষ্ট হবে।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়, শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর থেকে ওই গো-শালায় ৮০টি গরু মারা গেছে এবং আরও কিছু গরু অসুস্থও রয়েছে। ঘটনাস্থলে পশুপালন ও মেডিকেল বিভাগের টিম উপস্থিত রয়েছে। সংশ্লিষ্ট বিভাগের যুগ্ম পরিচালক ডা. জগদীশ বারবাড জানান, গো-শালায় শুক্রবার সন্ধ্যায় গরুরা আচমকা অ’সুস্থ হয়ে পড়ে।

রাতে ৮০টি গরু মারা যায়। আরও কয়েকটি গরু অ’সুস্থ হয়ে আছে। যদিও তাদের মধ্যে বেশিরভাগের অবস্থা ঠিক আছে। তিনি বলেন, সম্ভবত কোনও বি’ষা’ক্ত জি’নিস খাওয়ার কারণে ওই ঘট’না ঘ’টেছে। পশুখাদ্যের নমুনা নেওয়া হয়েছে এবং তা পরী’ক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন=অনেকের মতে বাংলাদেশের ক্রিকেটের ব্যাড বয় নাকি সাব্বির রহমান। দীর্ঘ ৬ বছর পেরিয়ে গেছে জাতীয় দলে অভিষেকের। ক্যারিয়ারে বেশিরভাগ সময়েই জড়িয়েছেন বিতর্কে। এরপরও তার ব্যাট যেদিন জ্বলে উঠেছে সেদিন নিজেকে চিনিয়েছেন নতুন করে। তবে সেসব বিতর্ক-ভুল পেছনে ফেলে সময়ের সঙ্গে নিজেকে বুঝতে শিখেছেন এই হার্ড-হিটার। ‘আমি এখনও তরুণ তবে পরিণত। শেষ ৩-৪ বছর যেটা ছিল না, এখন হয়তো সেটা বুঝতে পারছি।

যথেষ্ট পরিণত মনে হচ্ছে এবং মনে হচ্ছে যে কিছুটা শান্তশিষ্ট। যথেষ্ট পরিণত হিসেবে কাজ করা উচিত। সবকিছু মিলে ভালোমতো খেলার চেষ্টা করব।আসন্ন বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে খেলবেন ২৯ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে সাব্বির জানিয়েছেন, জাতীয় দলের বাইরে যারা তাদের জন্য বড় সুযোগ এই টুর্নামেন্ট।

এই টুর্নামেন্টটির জন্য সব প্লেয়ারই অপেক্ষা করছিল এবং যারা যারা বিপিএল বা প্রিমিয়ার লিগ খেলি এরকম প্লেয়ারদের জন্য এরকম একটি টুর্নামেন্ট গুরুত্বপূর্ণ সবার জন্য। একই সময় যারা ন্যাশনাল টিমে নাই তাদের জন্য কামব্যাক করার এটি একটি সুযোগ।’ লক-ডাউনের সময়টায় রাজশাহীতে ছিলেন সাব্বির।