হিন্দু হয়ে গেছেন, এই প্রশ্নে যা বললেন মিথিলা

প্রতিটি মানুষ তার মতো করে বাঁচার অধিকার নিয়ে জন্মায়। সে তার বিশ্বাস ও ধর্মকে লালন করে একান্তই নিজের মতো করে। কিন্তু সামাজিক প্রাণী হিসেবে মানুষকে বেঁচে থাকতে হয় নানা রকম বিশ্বাস ও ধর্মের অনুসারীদের সঙ্গে। অনেকে ভিন্ন দুটি বিশ্বাসের ওপর দাঁড়িয়ে সংসারও পাতেন। যুগের পর যুগ তারা সুখে আছেন এমন

অনেক নজির রয়েছে।কিন্তু সমাজে এ সম্পর্কগুলো নিয়ে তাদের অনেক কথাই শুনতে হয়। সাম্প্রদায়িকতার আগুনে প্রতিনিয়ত বিদ্ধ হয় অসাম্প্রদায়িক ভাবনার মানুষ।ঠিক তেমনটাই দেখা যাচ্ছে জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলার বেলায়। মিথিলা ভালোবেসে বিয়ে করেছেন কলকাতার জনপ্রিয় চলচ্চিত্রকার সৃজিত মুখার্জিকে। মুসলিম মিথিলার হিন্দু স্বামী সৃজিত; বিষয়টি ভালোভাবে নিতে পারছেন না দুই ধর্মেরই কট্টরপন্থীরা। নানা সময় নানা কটূ মন্তব্যে বিদ্ধ করা হয় মিথিলাকে।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সুপারস্টার সাকিব আল হাসান কটূ মন্তব্যের শিকার হয়ে সম্প্রতি কালীপূজার উদ্বোধন ঘিরে ক্ষমা চেয়েছেন। নতিস্বীকার করেননি মিথিলা। স্বামীর ধর্মের নানা পূজা ও পার্বনে অংশ নিতে দেখা যায় তাকে। এসব নিয়েই বারবার প্রশ্ন ওঠে। মিথিলাকে ‘মুনাফিক’ বলে প্রশ্ন করা হয় তিনি ‘হিন্দু হয়ে গেছেন’ কি না। এবার সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করেই ধর্মীয় গোঁড়ামির বিরুদ্ধে জবাব দিলেন মিথিলা।

মিথিলা নিজের বক্তব্য প্রকাশ করতে মেয়ের প্রথম ভাইফোঁটা দেওয়ার ছবি টুইটারে শেয়ার করেন। তারপরই মিথিলা নেটিজেনদের উদ্দেশ করে লেখেন, “সমস্ত প্রকারের ধর্মীয় গোঁড়ামিকে না বলুন। আর উৎসবের আনন্দকে উদযাপন করুন, উপভোগ করুন। আর আমি ইচ্ছাকৃতভাবেই জোর গলায় একথা বলছি। ‘মুনাফিক’ আর ‘আপনি

কি হিন্দু হয়ে গেছেন?’- এ ধরনের অপদার্থ মার্কা মন্তব্যগুলো নিজেদের কাছেই রাখুন।”২০১৯ সালের ডিসেম্বরে পরিচালক সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয়। যাবতীয় কটাক্ষ, বিদ্রূপকে উপেক্ষা করেই নিজেদের ভিন্ন আচার, রীতিনীতি আপন করে নিয়ে ভালোবাসা-সুখে সংসার করে যাচ্ছেন এই দম্পতি।সুত্রঃ জাগো নিউজ২৪