হঠাৎ জোয়ারে চট্টগ্রামের শিশু হাসপাতালে হাঁটুপানি!

জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা চরমভাবে বিপর্যস্ত। চলতি বর্ষা মৌসুমে দিনে দুই বার করে জোয়ারের পানিতে ডুবছে হাসপাতালটি। এতে চিকিৎসক-রোগী ও রোগীর স্বজনদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।হাসপাতালের প্রধান ফটকের আগেই পুরো রাস্তা ডুবে আছে হাঁটু সমান পানিতে। উঁচু দেয়াল উপচিয়ে পানি ঢুকে পড়েছে হাসপাতালের নিচ তলার প্রতিটি কক্ষে।

লিফট বন্ধ থাকায় বিভিন্ন তলা থেকে রোগী নামাতে হচ্ছে কোলে করে। এমনকি ট্রলি চলাচল করতে না পারায় কোলে করেই রাস্তা থেকে রোগী আনতে হচ্ছে হাসপাতালে।রোগীর স্বজনরা জানান, রোগী নিয়ে যাতায়াত করা যাচ্ছে না। পানির কারণে লিফট বন্ধ। এখানে দুর্ভোগের শেষ নেই।প্রতিদিন গড়ে সাড়ে ৩০০ রোগী ভর্তি থাকার পাশাপাশি আউটডোর এবং ইনডোরে চিকিৎসা নিতে আসে অন্তত দেড় হাজার রোগী।

এর মধ্যে প্রসূতি মা এবং নবজাতকের সংখ্যা তুলনামূলক বেশি।আরেকজন রোগীর স্বজনরা জানান, এখানে রোগীরা চিকিৎসা নিতে এসে অনেক কষ্ট হচ্ছে। রোগীদের কোলে করে আনা নেওয়া করতে হয়।গত এক যুগের বেশি সময় ধরে এই হাসপাতালে জোয়ারের পানি ঢুকছে। কয়েক বছর আগে নিচতলা ৩ ফুট উঁচু করা হয়। কিন্তু পানি প্রবেশ বন্ধ করা যায়নি।

চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের উপ পরিচালক ডা. এ কে এম আশরাফুল করিম বলেন, এই সমস্যাটা দীর্ঘ দিনের; এটা হাসপাতাল কেন্দ্রিক সমস্যা না। আমাদের নিচতলা রোগী গুলোকে তিন তলায় নিয়ে গেছি। তাদের সেবা দিতে আমাদের সমস্যা হচ্ছে না।আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল ছাড়াও আশ পাশের কিছু এলাকায় জোয়ারের পানি ঢুকে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।