স্বামীর সন্ধান পেতে সন্তান কোলে ছবি হাতে স্ত্রী

স্বামীর সন্ধান চেয়ে সন্তান কোলে নিয়ে ছবি হাতে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করছেন স্ত্রী খুশি। নিখোঁজের সাতদিন পার হলেও সন্ধান মেলেনি আজিজুল সরকার বাপ্পি নামে এক নির্মাণ শ্রমিকের।দিনাজপুরের পার্বতীপুরে গত রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন তিনি। এ বিষয়ে মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) তার স্ত্রী বাদী হয়ে পার্বতীপুর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, পার্বতীপুর উপজেলার পশ্চিম রাজাবাসর বানিয়াপাড়া গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে আজিজুল সরকার বাপ্পি (রাব্বি)। তিন বোন ও তিন ভাইয়ের মধ্যে রাব্বি ৫ নম্বর।পেশায় দিনমজুর এই যুবক বছর তিনেক আগে বিয়ের পর সুখের ঘর বাধেন একই এলাকার ওবায়দুল হকের মেয়ে খুশিদা পারভীন খুশির সঙ্গে। এর কিছুদিন পর এই দম্পত্তির কোলজুড়ে আগমন ঘটে ফুটফুটে ছেলে সন্তান খোরশেদ রানার। এখন খোরশেদের বয়স দেড় বছর। বিয়ের পর থেকেই ভালোই কাটছিলো তাদের সংসার জীবন।

গত রোববার তাদের সুখের সংসারে নেমে আসে কালো মেঘের ছায়া। বৃষ্টির দিন হওয়ায় সেদিন কাজে যেতে পারেননি রাব্বি। দুপুরে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি চার্জে দিয়ে শখের বসে বাড়ির ব্যাটারিচালিত ভ্যান নিয়ে যান বড় বোন আক্তার বানুর বাড়িতে। বোনের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকেই নিখোঁজ হন আজিজুল সরকার বাপ্পি। ঘটনার দুইদিন পর চন্ডিপুর ইউপির বাজারপাড়া এলাকায় তার ভ্যানটি পাওয়া পাওয়া যায়। এদিকে নিখোঁজের সাতদিন অতিবাহিত হলেও সন্ধান মেলেনি তার।

আগের দিনের মতো স্বামী বাড়ি ফিরে তার সন্তানকে কোলে তুলে নিবেন এই আশায় পথ চেয়ে আছেন স্ত্রী খুশি। তবে, আজিজুল সরকার বাপ্পির নিখোঁজের বিষয়ে তার পরিবারের সন্দেহের তীর এখন স্বপন কুমার রায় নামে এক ব্যক্তির দিকে। কারণ পাওনা টাকা চাওয়ায় নিখোঁজের তিনদিন আগে রাব্বিকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে দাবি তার পরিবারের।

রাব্বির স্ত্রী খুশিদা পারভীন খুশি জানান, তার স্বামী নিখোঁজ রাব্বি রাজমিস্ত্রীর কাজ করতে স্বপন কুমার রায় নামে এক ব্যক্তির অধীনে। কয়েক মাস আগে একদিনের হাজিরা হিসেবে ৫০০ টাকা পেতেন রাব্বি।তবে নানা টালবাহানায় টাকা না দিয়ে দিনের পর দিন অতিবাহিত করেছে স্বপন। সর্বশেষ টাকার জন্য বৃহস্পতিবার রাতে বানিয়াপাড়া মোড়ে স্বপনের সঙ্গে রাব্বির কথা কাটাকাটি হয়। কর্মচারী হয়ে মালিকের সঙ্গে খারাপ আচারণের কারণে তাকে হুমকি দেয় স্বপন। এর তিনদিন পর রোববার থেকে আমার স্বামী নিখোঁজ।

শাশুড়ি আলীমা বেগমের অভিযোগ, তার জামাতাকে গুম করেছেন স্বপন নামে ওই ব্যক্তি। তাছাড়া রাব্বির কোনো শত্রু নেই বলে উল্লেখ করেন তিনি।বৃহস্পতিবারের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী একই এলাকার মাহমুদুল হকের ছেলে অলি উল্লাহ সরকার বলেন, রাব্বি ঘটনার দিন স্বপনের মোটরসাইকেল থামিয়ে তার পাওনা টাকার দেয়ার জন্য বলেন। কিন্তু স্বপন টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় রাব্বি তার মোটরসাইকেলের চাবি খুলে নেন। এর একপর্যায়ে দেখে নেয়ার হুমকি দেন স্বপন।এদিকে রাব্বির বাবা আতাউর রহমান ও তার মা দ্রুত ছেলের সন্ধান পাওয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে শ্রী রঘুনাথ রায়ের ছেলে অভিযুক্ত স্বপন কুমার রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি হুমকি দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, প্রায় ৫ মাস আগে যশাই এলাকার তের আনিয়ায় একটি কাজ করার সময় মজুরির ৫০০ টাকা বকেয়া ছিল রাব্বির। বৃহস্পতিবারের ঘটনার পর তার পাওনা সব টাকা প্রদান করা হয়েছে বলে দাবি স্বপনের। তবে, রাব্বির নিখোঁজের বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে উল্লেখ করেন।পার্বতীপুর মডেল থানার এএসআই রফিক জানান, খুশিদা পারভীন খুশি তার স্বামী আজিজুল সরকার বাপ্পির নিখোঁজের বিষয়ে থানায় একটি জিডি করেছেন (জিডি নম্বর- ১২৪০)।