সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত

সৌদি আরবের মক্কায় সড়ক দুর্ঘটনায় আমির হোসেন চৌধুরী (২৮) নামে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টার দিকে মসজিদুল হারামের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতের খালাতো ভাই শিমুল রবি জাগো নিউজকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।আমির হোসেন মক্কা শহরের একটি পিৎজার দোকানে চাকরি করতেন।

তিনি ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার সৈয়দাবাদ গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে। তারা বাবা আমজাদ হোসেনের বাংলাদেশ পুলিশে উপ-পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত আছেন।শিমুল রবি জাগো নিউজকে বলেন, আমির সৌদি আরবের মক্কায় একটি পিৎজা হাটে চাকরি করতেন। মঙ্গলবার বিকেলে মোটরসাইকেলে পিৎজা সরবরাহ করতে যাওয়ার সময় একটি দ্রুতগতির লরির ধাক্কায় তার মৃত্যু হয়।

মাত্র এক বছর আগেই তিনি চাকরি নিয়ে সৌদি গিয়েছিলেন।তিনি আরও জানান, আমির হোসেনের মৃত্যুতে বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় তার মরদেহ দেশে আনার চেষ্টা চলছে

অোরো পড়ুন…মালয়েশিয়ার মসজিদে বিদেশিদের নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছে দেশটির সরকার। টানা পাঁচ মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায়ের অনুমতি পেয়েছে মালয়েশিয়ায় থাকা বিদেশি অভিবাসীরা।মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) মন্ত্রীসভার বৈঠক শেষে দেশটির সিনিয়র প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দাতো সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব এ কথা জানান।এ সময় তিনি বলেন, ১ সেপ্টেম্বর থেকে বিদেশিদের মসজিদে নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে সরকারের পক্ষ থেকে সবুজ সংকেত দেয়া হয়েছে। তবে সবাইকে নিবন্ধন করে হ্যান্ড স্যানিটাইজ ব্যবহারের পর জায়নামাজ সঙ্গে নিয়ে মসজিদের প্রবেশ করতে হবে। মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব।

কিন্তু কতজনকে নামাজ আদায়ে মসজিদে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে তা মসজিদ কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেবে। আগের মতোই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক রাখা হয়েছে। মাস্ক ছাড়া কাউকেই মসজিদে প্রবেশ করতে দেয় হবে না বলেও জানান তিনি।করোনা মোকাবিলায় গত মার্চের মাঝামাঝি থেকে মসজিদে নামাজ আদায় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরে স্থানীয়দের মসজিদে নামাজ আদায়ের সুযোগ দিলেও নিষেধাজ্ঞা ছিল বিদেশিদের ক্ষেত্রে। ১ সেপ্টেম্বর থেকে বিদেশিদের মসজিদে নামাজ আদায়ের অনুমতি দেয়ায় খুশি মালয়েশিয়ায় কর্মরত বাংলাদেশিসহ লাখ লাখ বিদেশি।