সুখবর! দেশে এসে আটকেপড়া প্রবাসীদের পুনরায় সৌদি যাওয়ার অনুমতি

করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘদিন বন্ধের পর অবশেষে আশার বাণী শোনালো সৌদি সিভিল এভিয়েশন জেনারেল অথরিটি। চলমান মহামারী করোনা সংকটের কারণে আটকে থাকা প্রবাসীরা সৌদি আরবে ফিরে আসার সুযোগ পাচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা। তবে এ সংক্রান্ত নির্দিষ্ট কোন তারিখ এখনো জানানো হয়নি।

যে ২৫টি দেশের প্রবাসীরা সৌদি আরব ফিরে আসার সুযোগ পাচ্ছে তাদের মধ্যে বাংলাদেশের নামও রয়েছে। তবে আপাতত এ সুযোগ পাচ্ছে না পার্শ্ববর্তী ভারত,পাকিস্তান,নেপাল, শ্রীলংকার সহ আরো কয়েকটি দেশ। যে ২৫ টি দেশের আটকে থাকা প্রবাসীরা সৌদি আরবে ফিরে যেতে পারবেন দেশগুলো হলোঃ ১- সংযুক্ত আরব আমিরাত,২-ওমান,৩-বাহরাইন,৪-লেবানন,৫-কুয়েত,৬-মিশর,৭-তিউনিসিয়া ,৮-মরক্কো,৯-চীন,

১০- ইংল্যান্ড,১১-ইন্দোনেশিয়া ,১২-ফ্রান্স,১৩-জার্মানি,১৪-ইতালি,১৫-অস্ট্রেলিয়া,১৬-তুরস্ক,১৭-গ্রীস,১৮-বাংলাদেশ,১৯ফিলিফাইন,২০-মালয়েশিয়া,২১-দক্ষিণ আফ্রিকা,২২-সুদান,২৩-ইথুপিয়া,২৪-কেনিয়া,২৫- নাইজেরিয়া,নিম্নক্ত শর্ত পূরণ করে উপরোক্ত ২৫টি দেশের নাগরিকরা সৌদি আরবে ফিরে যেতে পারবেন। শর্তগুলো হলোঃ

১. সৌদি আরব ভ্রমণ করতে হলে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইট থেকে একটি ফরম পূরণ করে তার মধ্যে বিস্তারিত তথ্য লিখে নিচে স্বাক্ষর করতে হবে এবং আসার সময় এয়ারপোর্টে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত ডেস্কে জমা দিতে হবে।২. ভ্রমণ করার ৭দিন পূর্ব থেকে কোয়ারেন্টাইন থাকতে হবে। মূলত পিসিআর দেওয়ার ৪ দিন আগে থেকে এবং পিসিআর রিপোর্ট পাওয়ার ৩ দিন পর পর্যন্ত।

৩. সৌদি আরবের টাটামন এবং তাওয়াক্বালনা এ্যাপস ডাউনলোড করে নিবন্ধন করতে হবে।৪. অবশ্যই আসার ৮ ঘণ্টার মধ্যে টাটামন (tatamman) অ্যাপের মাধ্যমে বাসার অবস্থান নির্ধারণ করতে হবে।৫. কোভিড ১৯ এর লক্ষণ সম্পর্কে অবগত থাকতে হবে। যদি কোন লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে সরাসরি ৯৩৭ নাম্বারে ফোন করতে হবে অথবা সাধারণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হবে।

৬. আপনাকে টাটামন এ্যাপসের মাধ্যমে প্রতিদিনের স্বাস্থ্যের অবস্থা জানাতে হবে এবং আপনি কোয়ারেন্টাইন থাকাকালীন সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশিত ফরম অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।