লটারিতে জেতা ১২ মিলিয়ন দিরহাম কী করবেন হামিদি

সৌদি নাগরিক আহমেদ আল হামিদির ফাস্টফুডের দোকান আছে বাহরাইনে। গত কয়েক বছর ধরে লাগাতার লটারির টিকেট কিনেছেন তিনি। অবশেষে কপাল খুলেছে তার। শনিবার (০৩ অক্টোবর) আবু ধাবিতে ১২ মিলিয়ন দিরহাম জেতেন তিনি।লটারি জেতার পর ৫৪ বছর বয়সী হামিদি বলেন, আমি এখনও ঘোরের মধ্যে আছি। এখনও আমার অনেক কিছু করার বাকি আছে। সেগুলো করতে চাই।

তিনি জানান, তিন মেয়ের ভবিষ্যৎ নিশ্চিতের জন্য কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দাতব্য সংস্থার জন্যও কাজ করার ইচ্ছা আছে তার।হামিদি বলেন, আমি সৌদি আরবের নাগরিক, বাহরাইনে থাকি। ফাস্টফুডের ছোট্ট ব্যবসা রয়েছে। আমার তিন মেয়ে। সত্য বলতে কি, এই অর্থ আমি মেয়েদের ভবিষ্যৎ নিশ্চিতের জন্য ব্যয় করবো। সেই সঙ্গে দাতব্য সংস্থার হয়ে কিছু করার ইচ্ছা আছে।

আগেও করেছি। তবে এখন আরো বেশি করে করতে পারবো। প্রতি বছর আমি বিশেষ শিশুদের জন্য খরচ করি। এখন তাদের আরো বেশি সহায়তা দেওয়া যাবে।খালিজ টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২ সেপ্টেম্বর আল হামিদি টিকেট কেনেন। তার লাকি নম্বর ০৫১১৭৫। তিনি একাই টিকেটটি কিনেছেন। আর তাই পুরো ১২ মিলিয়ন দিরহামের মালিকও তিনি একাই।তিনি জানান, প্রতি বছর অন্তত ৪ বার তিনি টিকেট কেনেন।

আরো পড়ুন…৭০ হাজার শিক্ষার্থীকে পেছনে ফেলে ইতালির সরকারি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশি মেয়ে মাহাজাবিন দিলরুবা দিপু।বাংলাদেশের টাঙ্গাইলে জন্মগ্রহণকারী দিপু সাত বছর বয়সে প্রবাসী বাবা-মার সাথে চলে যান ইতালিতে। সেখানেই তার বেড়ে ওঠা ও পড়াশোনা।ছোটবেলা থেকেই দিপু মেধাবীর পরিচয় দিয়েছেন। সব ক্লাসেই তিনি তার মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন ও বৃত্তি পেয়েছেন। এর ধারাবাহিকতায় এবার প্রায় ৭০ হাজার ইতালীয় ছেলেমেয়েকে পেছনে ফেলে ইতালির সরকারি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ করে নিয়েছেন।