রাজধানীর যেসব এলাকা বন্ধ থাকবে আজ

করোনায় অচল পুরো পৃথিবী। যার হাত থেকে রক্ষা পায়নি বাংলাদেশও। কিন্তু দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে দেশে তুলে দেয়া হয়েছে লকডাউন। তাই মানুষ সবখানে যাতায়াত করছে কোনো বারণ ছাড়াই। কিন্তু এই করোনা সময়ে নিজেকে বন্দি রাখার থেকে বুদ্ধিমানের কাজ আর হতে পারে না। নিজেকে বাসায় বন্দি রাখাই শ্রেয়। তারপরও জরুরি প্রয়োজনে কোথাও যেতে হতে পারে। দেখে নিন জায়গাটি আজ বুধবার (৭ অক্টোবর) খোলা আছে কি-না।

বন্ধ থাকবে যেসব এলাকা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, মধ্য এবং উত্তর বাড্ডা, জগন্নাথপুর, বারিধারা, সাতারকুল, শাহাজাদপুর, নিকুঞ্জ-১, ২, কুড়িল, খিলক্ষেত, উত্তরখান, দক্ষিণখান, জোয়ার সাহারা, আশকোনা, বিমানবন্দর সড়ক ও উত্তরা থেকে টঙ্গী সেতু।বন্ধ থাকবে যেসব মার্কেট যমুনা ফিউচার পার্ক, নুরুনবী সুপার মার্কেট, পাবলিক ওয়ার্কস সেন্টার, ইউনিটি প্লাজা, ইউনাইটেড প্লাজা, কুশল সেন্টার, এবি সুপার মার্কেট, আমির কমপ্লেক্স, মাসকট প্লাজা।

আরও পড়ুনঃআইপিএলে রাজস্থানকে ৫৭ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। গতকাল মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে পড়োঠোম ইনিংসে ৪ উইকেটে ১৯৩ রান করে রোহিত শর্মার মুম্বাই। জবাবে বুমরাহর দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্টিভেন স্মিথের রাজস্থান অলআউট হয়ে যায় ১৩৬ রানে।টসে জিতে এদিন প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মুম্বইয়ের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। হিটম্যান ও কুইন্টন ডি’কক শুরুটা ভালোই করেছিলেন।

ডি’কক ২৩ রান করে কার্তিক ত্যাগীর বলে আউট হন। অধিনায়ক রোহিত শর্মা যখন ক্রমশ ভয়ঙ্কর হওয়ার দিকে এগোচ্ছেন তখনই আসল ধাক্কা দেন শ্রেয়াস গোপাল। এই স্পিনারটি পরপর দু’বলে মুম্বাইয়ের অধিনায়ক রোহিত (৩৫) ও ঈশান কিষাণকে (০) প্যাভিলিয়নে ফেরান। জোড়া ধাক্কা সামলে মুম্বইকে ফের ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন দলের অপরিহার্য ক্রিকেটার সূর্যকুমার যাদব। মোট ১১টি বাউন্ডারি ও দুটি ছক্কায় সাজানো ছিল তার ইনিংস। সূর্যকুমারকে যোগ্য সঙ্গ দেন হার্দিক পান্ডিয়া (৩০)।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে রাজস্থান নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারাতে থাকে। অধিনায়ক স্মিথ (৬) এবং সঞ্জু স্যামসনও ব্যর্থ হন। একা দলকে টানার চেষ্টা করেন বাটলার (৭০)। কিন্তু তিনি আউট হতেই রাজস্থানের জয়ের আশা শেষ হয়ে যায়। মুম্বাইয়ের হয়ে বুমরাহ ছাড়াও দুটি করে উইকেট নেন প্যাটিনসন ও বোল্ট। এদিকে, রাজস্থানকে হারিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে মুম্বাই।

৬ ম্যাচে ৪ জয়ে মুম্বাইর সংগ্রহ ৮ পয়েন্ট। ৫ ম্যাচে ৪ জয়, ১ পরাজয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ভারতের রাজধানীর দল দিল্লী। পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে আছে কোহলির বেঙ্গালুরু। তাদের সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। পাঁচ ম্যাচে তাদের জয় ৩ টিতে এবং হার ২ টি। টেবিলের বাকি দলগুলোর অবস্থান যথাক্রমে: কলকাতা, চেন্নাই, হায়দ্রাবাদ, রাজস্থান এবং পাঞ্জাব। পাঁচ ম্যাচ খেলে পাঞ্জাবের জয় ১টি এবং হার ৪টি।