যে কারণে চাকরি হারালেন ১০ পুলিশ

ডোপ টে-স্টে পজি-টিভ হয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশে (ডি-এমপি) কর্মরত ৬৮ স-দস্য। এ জন্য ৪৩ জনের বি-রু-দ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়েছে। ই-তোমধ্যে সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন ১৮ জন। এর মধ্যে ১০ জনকে চূড়ান্ত ব-রখা-স্ত করে আদেশ জারি করা হয়েছে। বিভাগীয় শা-স্তিমূ-লক ব্য-বস্থা প্র-ক্রিয়াধীন ২৫ জনের বি-রু-দ্ধে।শুধু তাই নয়, মা-দক বি-ক্র-য়, সেবন এবং মা-দক দিয়ে ফাঁ-সানো-সহ উ-দ্ধার মা-দক তু-লনায় কম দেখানোর অভিযোগে অ-ভিযু-ক্ত হয়েছেন ডি-এমপির আরও ২৯ স-দস্য। এদের মধ্যে ই-তোমধ্যে সা-জাপ্রা-প্ত হয়েছেন ছয় পু-লিশ সদস্য।

রোববার (২২ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর পু-লিশের মিডিয়া অ্যা-ন্ড পাবলিক রি-লে-শন্স বিভাগ সূ-ত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।ডিএমপি সদর দফতর সূ-ত্রে জানা গেছে, মা-দকের বি-রু-দ্ধে সরকারের শূন্য-স-হিষ্ণু-নীতি বাস্তবায়নে পুলিশ নিরলস কাজ করছে। এর ধা-রাবাহিকতায় মা-দক সে-বন ও এর কার-বারে জড়িত পুলিশ স-দস্য-দের চি-হ্নিত করে ব্য-বস্থা নেয়া হচ্ছে।রো-ববার পর্য-ন্ত ডোপ টে-স্টে পজি-টিভের সংখ্যা ৬৮ জনে দাঁড়িয়েছে। চূ-ড়ান্ত প্র-ক্রি-য়ায় তাদের সবার বি-রুদ্ধে-ই একই ধরনের ব্য-বস্থা নেয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে এর আগে ডি-এমপি ক-মিশনার মোহা. শ-ফিকুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মা-দক সংশ্লি-ষ্টতা-য় শা-স্তি দেয়ার আ-গে সবাইকে স-ত-র্ক করা হয়েছে। যারা নিজেদের শো-ধরায়নি তাদের বি-রু-দ্ধে ব্য-বস্থা নেয়া হচ্ছে। মহা-নগর পু-লিশের মা-দকাস-ক্ত কোনো স-দস্য আ-মার কা-ছে এলে স্বা-ভাবিক জী-বনে ফে-রাতে চি-কিৎসার ব্য-বস্থা করব। ডি-এমপির প-ক্ষ থেকে উ–দ্যোগ নিয়ে ডো-প টেস্ট করানো হচ্ছে।’জানা গেছে, মা-দকবিরোধী অভিযানের অং-শ হি-সেবে নি-জেদের ম-ধ্যে শু-দ্ধি অ-ভিযান শু-রু করেছে পু-লিশ সদর দ-ফতর। এর অংশ হিসেবে দুই মাস আগে ডিএমপি সদস্যদের ডোপ টে-স্ট শুরু হয়।

স-ম্প্রতি রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর সে-কশনে ন-বসৃ-ষ্ট ট্রা-ফিক মিরপুর বিভাগের উপ-কমি-শনারের কার্যালয় উদ্বো-ধন শেষে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘ডোপ টে-স্টে যাদের পজিটিভ এসেছে, তাদের বিরু-দ্ধে ব্যব-স্থা নিতে পারলে বাকিদের জন্য সু-স্প-ষ্ট বা-র্তা যাবে যে, আমরা কাউকে ছাড় দিচ্ছি না। এ উদ্যো-গের ফলে অনেকে ভালো হয়েছে এবং এ রা-স্তা থেকে ফিরে এসেছে।’তিনি আর বলেন, ‘পুলিশ সদ-স্য-দের মধ্যে যারা মাদকের স-ঙ্গে সম্পৃ-ক্ত বা মা-দক ব্য-বসায়ীকে স-হযোগিতা কর-ছে, স-রাসরি তাদের বি-রু-দ্ধে মামলা দিয়ে গ্রে-ফতার করা হচ্ছে। এ বি-ষয়ে কো-নোরকম শি-থিলতা দেখা-নো হচ্ছে না।‌ সাধারণ মা-দক ব্যব-সায়ীর বি-রু-দ্ধে যে-ভাবে ব্য-ব-স্থা নেয়া হয়, ঠি-ক সে-ভাবেই মা-দকের স-ঙ্গে স-ম্পৃ-ক্ত পু-লিশ স-দস্য-দের বি-রু-দ্ধে ব্য-বস্থা নেয়া হচ্ছে।’

সূ-ত্র জা-নায়, ডি-এমপি সদ-স্যদের ম-ধ্যে মা-দকাস-ক্ত হিসেবে স-ন্দেহভা-জনদের তালিকা করে সিআইডির ল্যা-বে তাদের র-ক্ত ও প্র-স্রাবের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।ডিএমপির মিডিয়া অ্যা-ন্ড পাবলিক রি-লেশন্স বিভা-গের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. ওয়া-লিদ হোসেন জাগো‌ নিউ-জকে বলেন, ‘ডোপ টে-স্টে এখ-ন প-র্যন্ত মোট অ-ভিযু-ক্ত পুলিশ সদস্য সংখ্যা ৬৮ জন। তাদের বি-রু-দ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়েছে ৪৩টি। বিভাগীয় ব্য-বস্থা প্র-ক্রিয়াধীন ২৫ জনের বিরুদ্ধে। সাময়িক বরখাস্তের আদেশ জারি হয়েছে ১৮ জনের বিরুদ্ধে এবং বর-খাস্তে-র চূড়া-ন্ত আদেশ জারি হয়েছে ১০ জনের বিরুদ্ধে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মা-দক সং-ক্রা-ন্ত অন্যা-ন্য অভিযোগ যেমন মা-দক বি-ক্রি অভি-যু-ক্ত- ১০ জন, মাদ-ক সেবনে অভি-যু-ক্ত পাঁচজন, মাদ-ক দিয়ে ফাঁ-সানোর ঘ-টনায় অভি-যু-ক্ত ১০ জন এবং উ-দ্ধার মা-দক উ-দ্ধারের তুল-নায় কম দেখিয়ে অ-র্থগ্রহণে অ-ভিযু-ক্ত চারজন। মোট ২৯ জন অ-ভিযু-ক্ত পুলিশ সদ-স্যের মধ্যে মা-দক সেব-নে একজন এবং মা-দক দি-য়ে ফাঁ-সানোর ঘ-টনায় পাঁ-চজনসহ মোট ছয়জন চা-করিচ্যু-ত হয়ে-ছেন।’ডিএমপি সূত্রে জানা গেছে, ডি-এমপি কমি-শনারের নিজ-স্ব গো-য়েন্দা সংস্থা (ইন্টে-লিজেন্স অ্যা-নালাইসিস ডি-ভিশন-এ-নআইডি) পু-লিশের মাদক সে-বন ও মা-দক কারবারে স-ম্পৃক্ত-তার বিষয়ে ত-দ-ন্ত কর-ছে। ডিএমপির বি-ভিন্ন বি-ভাগে দা-য়িত্ব-রতদের অনেকে মা-দকা-স-ক্ত হওয়ার পাশাপাশি মা-দক কারবারিদের স-ঙ্গে সখ্য গড়ে আ-র্থিক সুবি-ধা নেয় বলেও তদন্ত উঠে এসেছে। তাদেরও তালিকা করা হচ্ছে।