মা দুর্গার সাজে সমালোচনার মুখে সংসদ অ’ভিনেত্রী নুসরাত

তিনি বরাবরই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিয়ে এসেছেন। হিন্দু-ইস’লাম সহ সমস্ত ধ’র্মের প্রতিই শ্রদ্ধা দেখিয়েছেন। তারপরেও তাকে সোশ্যাল মাধ্যমে বারবার আক্রমণ করেছেন কিছু সংকী’র্ণ মানসিকতার মানুষজন।বৃহস্পতিবার মহালয়ার দিন স্বামী নিখিল জৈনের বস্ত্র বিপণী সংস্থার বিজ্ঞাপনে মা দুর্গার বেশে ধ’রা দিয়েছেন সংসদ অ’ভিনেত্রী নুসরাত জাহান। আর তাতেই ফের কিছু মৌলবাদীদের কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছে সংসদ অ’ভিনেত্রীকে।

ভা’রতের জি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নীল চওড়া পাড়ের লাল শাড়ি, হাতে শাঁখা-পলা, মা’থায় টায়রা-টিকলি পরে, ত্রিশূল হাতে মা দূর্গার সাজে দেখা গেছে নুসরাতকে। নুসরাতের পোস্ট করা ভিডিও এর ব্যাকগ্রাউন্ডে শোনা গিয়েছে চির পরিচিত সেই স্তোত্র, ‘মধুকৈটভ বিধ্বংসী বিধাতৃবরদে নমঃ। রুপং দেহি জয়ং দেহি যশো দেহি দ্বিষো জহি।’

দুর্গার সাজে মহালয়ার দিন ধ’রা দেওয়ার কারণে সংসদ, অ’ভিনেত্রী নুসরাত জাহানের উদ্দেশ্যে কিছু লোকজন অশালীন মন্তব্য করেছেন। যদিও সবাই যে সংসদ, অ’ভিনেত্রীর সমালোচনা করেছেন এমনটা নয়। অনেকেই এমন রয়েছেন যারা অ’ভিনেত্রীর সম্প্রীতির বার্তা ছড়ানোর প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

নুসরাত বরাবরই এই সমস্ত সমালোচনাকে তোয়াক্কা করেননি। তিনি ঈদে রোজা রেখেছেন, আবার জন্মাষ্টমীতে সাজগোজ করে ধ’রা দিয়েছেন। এমনকি নিখিল জৈনের সাথে বিয়ের ঠিক পরপর চওড়া সিঁদুর, হাতে চূড়া পরে নববধূর বেশে সংসদে ভাষণ দিতেও দেখা গিয়েছে তাকে। হাজির হয়েছেন রথযাত্রা অনুষ্ঠানেও। আর মহালয়াতেও তার অন্যথা হলো না।