বেঁচে থাকা ১০ জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক

নারায়ণগঞ্জে বায়তুস সালাত জামে মসজিদে গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজন শঙ্কামুক্ত হলেও বাকি ১০ জনের অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক।শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শঙ্কর পাল সোমবার সকালে সাংবাদিকদের বলেন, ৩৭ জন রোগীর মধ্যে ২৬ জন মারা গেছেন।

১১ জন ভর্তি রয়েছেন, তাদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।তিনি বলেন, মামুন (৩০) নামে একজন আশঙ্কামুক্ত; তাকে ওয়ার্ডে চিকিৎসাধী দেয়া হচ্ছে। আর ১০ জনের মধ্যে পোস্ট অপারেটিভে রয়েছেন চারজন, আইসিইউতে ছয়জন। তারা সবাই ৫০ শতাংশের বেশি দগ্ধ হয়েছেন। আর মামুনের শরীর ১০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক মুসল্লি দগ্ধ হন।দগ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৭ জনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।বিস্ফোরণে মসজিদের ছয়টি এসি পুড়ে গেছে। জানালার কাচ উড়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আরো পড়ুন…পানের সঙ্গে সুপারি, চুন ও নানান রকমের জর্দা (তামাকজাতীয় দ্রব্য) এবং খয়ের খেয়ে থাকি আমরা। পান পাতার সঙ্গে চুন-সুপারি জর্দা খেলে তা মুখের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়।পানে রয়েছে কিছু কেমিক্যাল, এর মধ্যে টারফেনলস অন্যতম। পান খাওয়ার কারণে ঠোঁট ও জিহ্বায় লাল দাগ পড়ে। পানের সঙ্গে যে চুন খাওয়া হয়, সেটি হলো ক্যালসিয়াম অক্সাইড বা ক্যালসিয়াম হাইড্রোঅক্সাইড। এই চুন দাঁতের জন্য ক্ষতিকর। চুনে রয়েছে প্যারা-অ্যালোন-ফেনল, যা মুখে আলসার বা ঘা সৃষ্টি করার মাধ্যমে জিহ্বার স্বাদ নষ্ট করে দিতে পারে। এ আলসার ধীরে ধীরে ক্যান্সারে রূপান্তরিত হতে পারে।