প্র`তিবেশী ক`রল ধ`র্ষ`ণ, কি`শোরী মেয়েকে মে`রে পুঁ`তে রা`খলেন বাবা-ভাই

প্র`তিবেশীর ধ`র্ষ`ণের শি`কার হয়ে অ`ন্তঃস`ত্ত্বা হয়েছিল কি`শোরী মে`য়েটি। প`রিবারের এ ‘ল`জ্জা’ ঢা`কতে শ্বা`সরো`ধ করে মে`য়েকে খু`ন ক`রলেন বা`বা। খু`ন ক`রার কাজে বা`বাকে সা`হায্য ক`রেন কি`শোরীর ভা`ই। এ ঘ`টনায় দু`জনকে গ্রে`ফতার করেছে পু`লিশ।ম`ঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) ভা`রতের উ`ত্তরপ্র`দেশের যো`গীরা`জ্যের শা`হজাহানপুর জে`লায় এ ঘ`টনাটি ঘ`টেছে।১৬ বছরের কি`শোরী মে`য়েটি যে অ`ন্তঃস`ত্ত্বা হয়ে পড়েছে, সে খবর প`রিবারের চা`র দে`য়ালে গো`পন থাকেনি।

সেটা ছ`ড়িয়ে পড়ে গো`টা গ্রামে। খবর ছ`ড়িয়ে যাওয়ার পরে বি`ভিন্নজন বি`ভিন্ন কথা বলতে শুরু করে। মে`য়ের কৃ`তক`র্মে ঘ`রের বাইরে পা রা`খতে ‘ল`জ্জা’ বো`ধ করছিল প`রিবারের লো`কজন। পাঁচ জনের পাঁচ কথা, ক`টূ`ক্তি কানে আ`সছিল তাদের। অবশেষে ধৈ`র্য হা`রিয়ে যায় পরি`বারের, প্র`চণ্ড মা`রধ`র` করে এবং শে`ষ প`র্যন্ত শ্বা`সরো`ধে হ`ত্যা করেন বাবা। বো`নকে বাঁ`চানোর চে`ষ্টা না করে উ`ল্টো কি`শোরী`র ভাইও শা`মিল হয় প`রিবারের ‘স`ম্মান’ র`ক্ষায়।

শেষ পর্যন্ত মৃ`ত্যু হয় অ`ন্তঃস`ত্ত্বা ওই কি`শোরীর।এ`রপর বড় ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে স`কার নজর এ`ড়িয়ে মৃ`ত মে`য়েকে ন`দীর তী`রে পুঁ`তে রে`খে আ`সেন বাবা। ভেবেছিলেন, কেউ কিছু জানতে পারবে না। কিন্তু পু`লিশের কা`নে পৌঁ`ছে যায় সে খবর। পু`লিশ আ`টক করে বাবা ও তার ভা`ইকে। পু`লিশের জি`জ্ঞাসাবাদে মে`য়ের খু`নের ক`থা স্বী`কার করেন বাবা। জা`নান, মেয়ে অ`ন্তঃস`ত্ত্বা ছিল।গ্রা`মের লো`কের বি`দ্রূপ, ক`টূক্তি আর স`হ্য হ`চ্ছিল না।

বা`ইরে বের হলে লো`কজন অ`পমানজনক ক`থাবার্তা বলছিল। তাই মে`য়েকে খু`ন` করে ফে`লেছি। পরে তা`দের জি`জ্ঞাসাবাদ শেষে ন`দীর তীর থেকে দে`হটি উ`দ্ধার করে শা`হজাহানপু`রের পু`লিশ।শা`হজাহানপু`রের এ`সএসপি এস আ`নন্দ জা`নান, দু`জনের বি`রুদ্ধে ভা`রতীয় দ`ণ্ডবি`ধির ৩০২ (খু`ন), ২০১ (প্র`মাণ লো`পাটের চেষ্টা) ধা`রায় অ`ভিযোগ দা`য়ের হয়েছে। পু`লিশ তাদের গ্রে`ফতারও করেছে। পু`লিশ মে`য়েটির মা ও অ`ন্য আ`ত্মীয়`দেরও জি`জ্ঞাসা`বাদ করেছে। তবে প`রিবারের আর কেউ এ ঘ`টনায় জ`ড়িত ছিলেন না বলে জা`না গে`ছে।প`রিবারের সঙ্গে কথা বলে পু`লিশ জা`নতে পারে, ওই কি`শোরী কো`নো দিন স্কু`লে প`র্যন্ত যা`য়নি। প্র`তিবেশী`দেরই কেউ তাকে ধ`র্ষ`ণ করেছিল।

যার কারণে সে অ`ন্তঃস`ত্ত্বা হয়ে পড়ে। বারবার মে`য়েকে জি`জ্ঞাসা ক`রেও ধ`র্ষ`কের নাম জা`নতে পারেনি প`রিবার। মৃ`ত্যুর আগে প`র্যন্ত একটি কথাও বের হয়নি তার মুখ থেকে।পু`লিশ জানায়, ধ`র্ষ`ককে তারা খুঁ`জে বের করার চে`ষ্টা করছে। না`বালিকার সঙ্গে শা`রী`রিক স`ম্পর্ক অ`পরা`ধ। ফলে যে এই কা`জটি করেছে, তার ক`ঠোর সা`জা হবে।ম`ঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) পু`লিশ কি`শোরীর মৃ`তদেহ উ`দ্ধার করে প`রীক্ষার জন্য পা`ঠায়। জানা গেছে, ২৩ সে`প্টেম্বর থেকে নি`খোঁজ ছিল ওই কি`শোরী। কিন্তু প`রিবারের পক্ষ থেকে কোনো জি`ডি করা হয়নি পু`লিশের কাছে।