পাগলির কোলে ‘মহারানী’ বাবার সন্ধানে পুলিশ

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মানসিক ভারসাম্যহীন এক কিশোরী (১৪) ফুটফুটে কন্যাসন্তান প্রসব করেছে। বর্তমানে মা ও সন্তান সুস্থ-স্বাভাবিক রয়েছে। তবে মিলছে না বাবার সন্ধান। এই নবজাতকের বাবাকে খুঁজছে পুলিশ।মানসিক ভারসাম্যহীন ওই কিশোরী তার নাম বলছে মাধবী আক্তার। তার তথ্যমতে তাদের বাড়ি শ্যামনগর উপজেলার বংশীপুর গ্রামে। বাবার নাম শ্যামপদ।

এছাড়া আরও এক মানসিক ভারসাম্যহীন তরুণী (২২) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সন্তান জন্ম দেয়ার অপেক্ষায়। তার পরিচয় এখনও জানা যায়নি।স্থানীয়রা জানান, সন্তান জন্ম দেয়া কিশোরী কালীগঞ্জের মাছ বাজার ও বাস টার্মিনাল এলাকায় ঘোরাফেরা করতো। অজ্ঞাত অন্য তরুণী ঘোরাফেরা করতো কালীগঞ্জ সদরের বিভিন্ন এলাকায়।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শেখ তৈয়েবুর রহমান জানান, কালীগঞ্জ বাস টার্মিনাল এলাকায় রাস্তার পাশে প্রসব বেদনায় ছটফট করছিল ওই কিশোরী। বিষয়টি দেখতে পেয়ে গত ১৭ আগস্ট স্থানীয় একজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। ভর্তির পর ওই দিনই সে একটি ফুটফুটে কন্যাসন্তান প্রসব করে। তাকে সে ‘মহারানী’ বলে ডাকছে। ওই কিশোরী মূলত মানসিক ভারসাম্যহীন।

তার নাম-পরিচয় যেটি বলেছে সেটিও নিশ্চিত নয়।ডা. শেখ তৈয়েবুর রহমান বলেন, হাসপাতাল থেকেই ১২ দিন ধরে তাদের খাবার-ওষুধপত্রসহ সার্বিক ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সমাজসেবা অধিদফতরকে লিখিতভাবে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এছাড়া আরেকজন মানসিক ভারসাম্যহীন তরুণীকে গত ২৪ আগস্ট হাসপাতালে ভর্তি করেছেন স্থানীয়রা।

তিনিও গর্ভবতী। যে কোনো সময় তারও সন্তান হবে। তবে তার নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তাকে নিয়ে আমাদের হিমসিম খেতে হচ্ছে। তিনি বিভিন্ন সময় হাসপাতালের বেড ছেড়ে এখানে সেখানে চলে যাচ্ছে।কালীগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনাটি আমরা তদন্ত করছি। ওই নবজাতকের বাবাকে খোঁজা হচ্ছে।