দেশে ফিরে বাবা-ভাইয়ের হাতে খুন কাতার প্রবাসী

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরে পিতা ও ছোট দুই ভাইয়ের হাতে মো. হাসান (৩৫) নামে এক কাতার প্রবাসী খুন হয়েছেন। বৃহস্পতিবার উপজেলা সদরের পশ্চিমপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাসান ওই এলাকার আনোয়ার হোসেনের পুত্র।ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত আনোয়ার ও তার পুত্র সাইফুল এবং সবুজ আত্মগোপনে রয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুড়িচং উপজেলা সদরের পশ্চিম পাড়া এলাকার অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আনোয়ার হোসেনের পুত্র হাসান চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি কাতার থেকে দেশে ফিরেন। এরপর করোনা পরিস্থিতির কারণে আর কর্মস্থলে ফিরে যেতে পারেননি।আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসান তার ছাদ বাগান পরিচর্যা করতে যায়। এসময় তাই ছোট দুই ভাই সাইফুল ইসলাম ও সবুজ সেখানে গিয়ে পারিবারিক বিষয় নিয়ে হাসানের সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়ে।

কিছুক্ষণ পর সাইফুল ও সবুজের সাথে তর্কে যোগ দেন পিতা আনোয়ার। তর্কবির্তকের এক পর্যায়ে ছোটভাই সাইফুল বড়ভাই হাসানের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করলে সে সংজ্ঞাহীন হয়ে লুটিয়ে পড়ে। তখন পিতাসহ দুই পুত্র হাসানকে ছাদের উপর রেখেই চলে যায়। তর্ক শুনে হাসানের স্ত্রী তানিয়া ছাদে গিয়ে স্বামীকে এ অবস্থায় দেখে চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।বুড়িচং থানার অফিসার ইনাচর্জ (ওসি) মোজাম্মেল হক জানান, খবর পেয়ে থানার এসআই বিনোদ দস্তগীর ঘটনাস্থলে গিয়ে হত্যাকাণ্ডের আলামত হিসেবে ইটটি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।হাসানের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।এ বিষয়ে একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন উল্লেখ করে ওসি মোজাম্মেল বলেন, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।