তিন শতাধিক গর্ভবতী মাকে সেনাবাহিনীর বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাগেরহাটের শরণখোলায় গর্ভবতী মায়েদের বিনামূল্যে বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেছে সেনাবাহিনী।বরিশাল সেনানিবাসের ৭ পদাতিক ডিভিশনের ব্যবস্থাপনায় এবং সিএমএইচএর সহযোগিতায় এ মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালিত হয়।

সোমবার সকাল থেকে শরণখোলা উপজেলা হাসপাতালে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী মেডিকেল ক্যাম্পে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার তিন শতাধিক গর্ভবতী মা চিকিৎসাসেবা গ্রহণ করেন। এসময় মায়েদের চিকিৎসার পাশাপাশি বিনামূল্যে ওষুধ প্রদান করা হয়।দুপুরে মেডিকেল ক্যাম্প পরিদর্শন করেন বাগেরহাট-৪ আসনের এমপি আমিরুল আলম মিলন ও বরিশাল সেনানিবাসের ২৮ পদাতিক ডিভিশনের কমান্ডার

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ আল মাসুম পিবিজিএম, এনডিসি, পিএসসি।এসময় লেফটেন্যান্ট কর্নেল শামস ইয়াসীন খান পিএসসি, অতিরিক্ত জেলা পলিশ সুপার মিজানুর রহমান, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফরিদা ইয়াসমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শন শেষে এমপি মিলন ও ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল মাসুম চিকিৎসা নিতে আসা গর্ভবতী মায়েদের খোঁজখবর নেন এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে স্থানীয় প্রশাসন, চিকিৎসক, জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।পরে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে হতদরিদ্রদের মাঝে করোনা প্রতিরোধক ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

আরো পড়ুন…‘লাইন চালু রেখেই ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারের সংযোগ লাগাতে বলা হয়। বারবার বলেছি লাইন বন্ধ করেন। ঠিকাদার বললেন কাজ করো। চাপের মুখে সংযোগ স্থাপনের জন্য ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারে হাত দিই। সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে খুঁটিতে ঝুলে যাই। ঝুলে থাকা অবস্থায় ঠিকাদার পালিয়ে যান। পরে বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ করে আমাকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু ততক্ষণে সব শেষ। প্রাণে বাঁচলেও দুই হাত কেটে ফেলতে হয় আমার। এখন প্রতিবন্ধী হয়ে বেঁচে আছি। ঠিকাদারের ভুলে চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেলাম আমি।’