টিকেটের টোকেন নিতে গিয়ে লাঠিপেটার শিকার সৌদি আরব প্রবাসীরা

এবার টোকেন নিতে গিয়ে লাঠিপেটার শিকার হলেন সৌদি আরব প্রবাসীরা।প্রতিদিনের মতো রোববার সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের সামনে ভিড় করেন তারা।এ সময় টোকেন নিতে ভেতরে ঢুকতে না পেরে হোটেল সোনারগাঁওয়ের গেট ভাঙচুর করেন সৌদিগামীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

পরে দুপুর দেড়টার দিকে, ভিসার মেয়াদ বিবেচনায় দেড় হাজার টোকেন দেয়ার কথা জানায় সাউদিয়া এয়ারলাইন্স।চাকরি বাঁচাতে যে কোনো মূল্যে টিকিট-টোকেন পেতে মরিয়া আটকেপড়া সৌদি প্রবাসীরা।বারবার আশ্বাসেও কোনো সুরাহা না হওয়ায় ভেঙে গেছে সব ধৈর্যের বাধ।রোববার সাড়ে ৯টা নাগাদ ফটক ভেঙে প্রবেশ করেন টোকেনপ্রত্যাশীরা।

পরিস্থিতি সামলাতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ সময় আহত হন বেশ কয়েকজন। এদিকে,মহামারি করোনা কালীন সময়ে দেশের বিভিন্ন বিমান, সমুদ্র ও স্থল বন্দর এবং রেলস্টেশন দিয়ে আগত প্রায় ১০ লাখ বিদেশ ফেরত যাত্রীর করোনার হেলথ স্ক্রিনিং করা হয়েছে। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়।আজ (৪ অক্টোবর) পর্যন্ত বিদেশ থেকে সর্বমোট ৯ লাখ ৯৮ হাজার ৬৭৮ জন যাত্রীর স্ক্রিনিং সম্পন্ন হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভিন্ন বন্দরে তিন হাজার ২২৮ জন যাত্রীর স্ক্রিনিং সম্পন্ন হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমারজেন্সি অ্যান্ড অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত বিভিন্ন বন্দর ও স্টেশন দিয়ে আগত যাত্রীদের মধ্যে আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরগুলো দিয়ে ৫ লাখ ৭০ হাজার ৭০ জন, সমুদ্র বন্দরগুলো দিয়ে ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৭২৮ জন, স্থলবন্দরগুলো দিয়ে ৪১ হাজার ৮৫১ জন এবং ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে আগত ৭ হাজার ২৯ জন যাত্রীর স্ক্রিনিং করা হয়।এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আগত ৩ হাজার ২২৮ জন যাত্রীর মধ্যে বিমানবন্দরে ২ হাজার ৮৪৩ জন, স্থলবন্দরে ১৫৯ জন এবং সমুদ্র বন্দর দিয়ে আগত ২২৬ জন যাত্রীর স্ক্রিনিং সম্পন্ন হয়।