জমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে যে সব নারীর

যমজ শিশুদের নিয়ে আমাদের মধ্যে সব সময় এক ধরনের কৌতূহল কাজ করে। মজার ব্যাপার হচ্ছে সম্প্রতি যমজ শিশুর জন্মও বাড়ছে।সম্প্রতি প্রকাশিত এক পরিসংখ্যান বলছে,যমজ সন্তান জন্মের হার আগের চেয়ে অনেকটাই বেড়ে গেছে। ১৯৮০ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত এই বৃদ্ধির হার ৭৬ শতাংশ।

১৯৮০ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সদ্যভূমিষ্ঠ প্রতি ৫৩ শিশুর মধ্যে একজন যমজ হত। ২০০৯ সালের হিসেবে তা বেড়ে দাঁড়ায় প্রতি ৩০ জনে একজন।সম্প্রতি যমজ সন্তানের মায়েদের উপর গবেষণা চালিয়েছে ‘জার্নাল অব রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন’।তাদের প্রকাশিত প্রতিবেদনে যমজ শিশু বেশি জন্ম নেয়ার কারণ, তাদের আচরণ এবং কাদের যমজ শিশু বেশি জন্ম হয় তা নিয়ে তথ্য দেয়া হযেছে।গবেষণায় বলা হয়েছে,

যেসব নারীদের উচ্চতা বেশি তাদের যমজ সন্তানের জন্ম দেয়ার সম্ভাবনা বেশি।গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, মায়ের উচ্চতার সঙ্গে যমজ সন্তান জন্মদানের সম্পর্ক রয়েছে। কারণ আমাদের শরীরের বেড়ে ওঠার জন্য কিছু বিশেষ বিষয় কাজ করে।যাকে বলা হয় গ্রোথ-ফ্যাক্টর। যা হচ্ছে ইনসুলিন নামের এক বিশেষ ধরণের প্রোটিন।এই ইনসুলিন বোন সেল বৃদ্ধিকে তরান্বিত করে। একই সঙ্গে মেয়েদের লম্বা হবার প্রবণতা ও যমজ সন্তান জন্মদানের বিষয়টিকে নিয়ন্ত্রণ করে।

আরো পড়ুন…ক’রো’না ভাই’রাস প্রা’দু’র্ভা’বের কার’ণে স্থ’গিত এই’চএসসি ও স’মমা’ন পরী’ক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। এ পরী’ক্ষা’ আগা’মী ১৫ নভে’ম্বরে’র মধ্যে আ’য়ো’জনে’র চিন্তা ভা’বনা করছে সরকার। তবে পূর্ণ নম্বর ক’মিয়ে সব বি’ষ’য়েই পরী’ক্ষা নেয়া’র পরিক’ল্পনা তৈরি করা হচ্ছে।প্র’তিদি’ন একটি বিষ’য়ে’র পরীক্ষা নেয়া হবে। আগা’মী ম’ঙ্গলবারে’র মধ্যে এ ব্যা’পারে বোর্ড’গুলো’কে সুনি’র্দিষ্ট নির্দেশনা দেবে শিক্ষা মন্ত্র’ণালয়। সং’শ্লিষ্ট সূ’ত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।