চিকিৎসক সেজে তরুণীদের সঙ্গে প্রতারণা করতেন মিজান

শাওন হাসান নামে এমবিবিএস ইন্টার্ন ডাক্তার পরিচয়ে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে দীর্ঘদিন যাবত মেয়েদের সাথে নানাভাবে প্রতারণা করে আসছিল রাজশাহীর মিজানুর। মেয়েদের সাথে বন্ধুত্বের কথা বলে ন্যুড কন্টেন্ট নিয়ে ব্লাকমেইল, বিয়ের আশ্বাস এবং চাকরি দেয়ার নামে নানাভাবে প্রতারণা করে আসছিল এসএসসি পাস করা মিজানুর।

খুলনার এমন একজন ভুক্তভোগী মেয়ে সিপিসিতে অভিযোগে জানান, চিকিৎসক পরিচয়ে বিয়ে করার আশ্বাসে মিজানুর তার কাছ থেকে বিভিন্ন সময় নানা অজুহাতে ২ লাখ টাকা নেয়। সিপিসি- এর সাইবার মনিটররিং টিম এমন একাধিক আইডির সন্ধান পেয়ে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে অনুসন্ধান করেন। ঘটনার সত্যতা এবং অভিযুক্তের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে সিআইডি সাইবার মনিটরিং টিম অভিযান চালিয়ে বগুড়ার শেরপুর থানা থেকে প্রতারক মিজানুরকে আটক করে।তার কাছ থেকে প্রতারণায় ব্যবহৃত অ্যাপ্রোন, দুটি মোবাইল সেট, চারটি ফেসবুক আইডি এবং বিকাশ একাউন্ট উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতার শাওনকে জিজ্ঞাসাবাদে এবং তার ডিভাইস পরীক্ষা করে অভিযোগের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকল তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। সে বিভিন্ন ডাক্তারের ভুয়া ফেসবুক আইডি তৈরি করে বিভিন্ন মেয়েদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে। পরবর্তীতে তাদের কাছ থেকে বিভিন্নভাবে বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেয়।ভিকটিম মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) পল্টন মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে।

সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (সাইবার মনিটরিং, সিপিসি) রেজাউল মাসুদ গণমাধ্যমকে বলেন, গ্রেফতার মো. মিজানুর রহমান ওরফে শাওন মেয়েদের সঙ্গে ফেসবুকে সম্পর্ক করে টাকা হাতিয়ে নিতেন। এমনকি ফেসবুকে শুধুমাত্র কলেমা পড়ে অসংখ্য মেয়েদের সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক করতেন। এরপর মেয়েদের নুডস ছবি নিয়ে পরবর্তীতে তাদেরকে ব্ল্যাকমেইলিং করেও টাকা হাতিয়ে নিতেন।