কাপড়ের সেলসম্যান থেকে হাজার কোটির মালিক ‘গোল্ডেন মনির

১৯৯০ এর দশকে রাজধানীর গাউছিয়ায় একটি কাপড়ের দোকানে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করতেন মো. মনির হোসেন। এরপর শুরু করেন ক্রোকারিজের ব্যবসা। তারপর লাগেজ ব্যবসা অর্থাৎ ট্যা-ক্স ফাঁকি দিয়ে তিনি বিভিন্ন দেশ থেকে মালামাল আনতেন।

একপর‌্যায়ে জড়িয়ে পড়েন স্ব-র্ণ চোরাকারবারে। এরপর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। অ-বৈধ-ভাবে স্ব-র্ণ চোরাচালান, জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ভূমি দখল করে এখন তিনি হাজার কোটি টাকার মালিক।অ-বৈধ অ-স্ত্র ও মা-দকসহ রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় গাড়ি ও স্বর্ণ ব্যবসায়ী মনিরুল হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনিরকে গ্রে-ফতারের পর এ

তথ্য জানিয়েছে র‌্যাব।রাতভর অভিযানের পর শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্থলে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব সদর দফতরের লিগ্যাল অ্যা-ন্ড মিডিয়া উইং-য়ের পরিচালক লে. ক-র্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, বিপুল পরিমাণ স্ব-র্ণ অ-বৈ-ধপথে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে নিয়ে এসেছেন গো-ল্ডেন মনির। আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে তার স্ব-র্ণ চোরাকারবারের রুট ছিল ঢাকা-সি-ঙ্গাপুর-ভারত। এসবই তিনি করেছেন ট্যা-ক্স ফাঁ-কি দিয়ে। যেখানে তার নাম হয়ে যায় গো-ল্ডেন মনির।

শু-ক্রবার (২০ নভেম্বর) শেষ রাত থেকে শনিবার (২১ নভেম্বর) বেলা সোয়া ১১টা প-র্য-ন্ত মনিরকে তার মেরুল বাড্ডার বাসায় অভিযান চালিয়ে বিদেশি পি-স্ত-ল, কয়েক রা-উন্ড গু-লি, ৬০০ ভরি স্বর্ণ (আট কেজি), ১০টি দেশের মু-দ্রা ও এক কোটি নয় লাখ টা-কাসহ আটক করে র‌্যা-পিড অ্যাকশন ব্যা-টা-লিয়ন (র‌্যাব)।

অভিযান শেষে কর্নে-ল আশিক বিল্লাহ জানান, অ-বৈধ অস্ত্র ও মাদ-ক থাকার সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভি-ত্তিতে শুক্র-বার (২০ নভেম্বর) শেষ রাত থেকে মেরুল বাড্ডায় গো-ল্ডেন মনিরের বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। অ-ভিযানে একটি বিদেশি পি-স্তল, কয়েক রাউন্ড গু-লি ও বিদেশি মা-দক উ-দ্ধার ক-রা হয়েছে। এছাড়া, তার বাসা থেকে ৬০০ ভরি (আট কেজি) সোনার গহনা, ১০টি দেশের মু-দ্রা জব্দ করা হয়েছে, যার -আনুমানিক মূল্য প্রায় নয় লাখ টাকা। এছাড়া নগদ এক কোটি নয় লাখ টাকাও জব্দ করা হয়েছে।

গোল্ডেন মনির একজন হুন্ডি ব্যবসায়ী, স্বর্ণ চোরা চালানকারী ও জমির দালাল উল্লেখ করে তিনি বলেন, তার বাড়ি থেকে অনুমোদনহীন দু’টি বিলাসবহুল গাড়ি জব্দ করা হয়েছে, যার প্রতিটির মূল্য প্রায় তিন কোটি টাকা। এছাড়া, তার গাড়ির শোরুম অটো কার সিলেকশন থেকে আরও তিনটি অনুমোদনহীন বিলাসবহুল গাড়ি জব্দ করা হয়েছে।‘ভূমিদস্যু’ গোল্ডেন মনির রাজউকের কিছু ক-র্মকর্তার যোগসাজশে বিপুল সংখ্যক বাড়ি ও প্লট হাতিয়ে নিয়েছেন। তার বাড্ডা ডিআইটি প্র-জেক্ট, নি-কু-ঞ্জ, কেরানী-গ-ঞ্জ-সহ বি-ভিন্ন স্থানে দুই শ-তাধিক প্ল-ট ও বাড়ি রয়েছে বলে আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে। তবে প্রাথ-মিকভাবে মনির ৩০টি স্থানে প্ল-ট ও বা-ড়ির কথা স্বীকার করেছেন।

গো-ল্ডেন মনিরের মোট সম্প-ত্তির পরিমাণ প্রায় এক হাজার ৫০ কোটি টাকারও বেশি। তার বিরুদ্ধে আরও বেশ কিছু অভিযোগ পাওয়া গেছে। এজন্য তার বিরুদ্ধে বিদেশে -অর্থপাচারের বিষয়ে তদন্ত করতে সিআইডি, অনুমোদনহীন গাড়ির জন্য বিআরটিএ ও দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) আনু-ষ্ঠা-নিকভাবে অনুরোধ করবে র‌্যাব, জানান তিনি।এদিকে, বাসা থেকে অ-স্ত্র, মা-দক ও বিদেশি মুদ্রা উ-দ্ধা-রের ঘ-টনায় গোল্ডেন মনিরের বিরু-দ্ধে বাড্ডা থানায় র‌্যাব পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করবে।