কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশির মৃত্যু

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বাংলাদেশি প্রবাসী। তিনি মৌলভীবাজার জেলার বাসিন্দা রুমেল মিয়া (২৬)। তার বাড়ি জেলার রাজনগর উপজেলার ২নং উত্তরভাগ ইউনিয়ন পরিষদের পানিশাইল গ্রামে। তার বাবার নাম ভুলু মিয়া।নিহতের গ্রামের প্রতিবেশী ইমাদুল ইসলাম জানান, শনিবার (২২ আগস্ট) রাতে কাতারের সালওয়া থেকে কাজ শেষে ফেরার পথে সেহেলিয়া মহাসড়কে একটি লরির সঙ্গে রুমেলকে বহনকারী গাড়ির ধাক্কা লাগে।

এতে ঘটনাস্থলে রুমেল গুরুতর আহত হন। পরে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।নিহত রুমেলের সহকর্মী কাতার প্রবাসী তোফায়েল আহমেদ জানান, ‘আমরা একসঙ্গে কাজ করতাম। কাজ শেষে গাড়িতে করে বাসায় ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় রুমেলের মৃত্যু হয়।’

রুমেলের লাশ বর্তমানে কাতারের স্থানীয় হামাদ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ দেশে পাঠানো হবে। এদিকে রুমেলের মৃত্যুর খবরে তার পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আরো পড়ুন…করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে মালয়েশিয়া সরকারের বেঁধে দেয়া বিধিনিষেধ, স্বাস্থ্যবিধি ও স্ট্যান্টার্ড অপারেটিং সিস্টেম (এসওপি) না মানলে অভিবাসীকর্মীদের ওয়ার্ক পারমিট বা কাজের ভিসা বাতিল করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ।বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খাইরুল দাজায়মি দাউদ এমন হুঁশিয়ারি দেন।

ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক বলেন, ২৪ জুলাই থেকে সরকার দেশে ফিরে আসা স্থানীয়দের এবং প্রবেশের অনুমতিপ্রাপ্ত বিদেশিদের জন্য ১৪ দিনের পৃথক কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা তৈরি করেছে। অভিবাসীদের ক্ষেত্রে তাদের পৃথকীকরণের পুরো ব্যয় নিজেদের বহন করতে হবে।ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক আরও বলেন, যদি তারা এটি করতে ব্যর্থ হয়, তবে আমরা তাদের স্বামী বা স্ত্রী এবং বিদেশিদের অস্থায়ী ওয়ার্কিং ভিজিট পাস (পিএলকেএস), পেশাদার ভিজিট পাস (পিএলআইকে), কর্মসংস্থান পাস (প্রবাসীকর্মী) ও মালয়েশিয়া মাই সেকেন্ড হোম পাস (এমএম২এইচ) বাতিল করা হবে।এই সময়ে সব পক্ষকে অবশ্যই করোনা প্রতিরোধে নির্ধারিত নির্দেশাবলি এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে সরকারি সংস্থাগুলোর সর্বশেষ ঘোষণা সম্পর্কে সচেতন হতে হবে।